| |

ভালুকা উথুরা কৈয়াদী ধর্ষক রমজান ও সাইফুলের ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ ও মানব বন্ধন

প্রকাশঃ জুলাই ০৭, ২০১৯ | ১০:৪৬ অপরাহ্ণ

আজহারুল ইসলাম ভালুকা প্রতিদিন:
ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার উথুরা কৈয়াদী দুই ধর্ষক রমজান ও সাইফুলের ফাঁসির দাবিতে উত্তাল।  গত ১৬ জুন ২০১৯ ইং কৈয়াদী সোনা উল্লাহ উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের ৮ম শ্রেণীর ছাত্রীকে দুই ধর্ষক রমজান ও সাইফুল ধর্ষণ করেন।  সেই দুই ধর্ষকের দ্রুত গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবিতে অদ্য জুলাই ২০১৯ইং রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ-উক্ত প্রতিষ্ঠানের কমিটি, শিক্ষকমন্ডলী, সুশীল সমাজ, যুব সমাজ, ছাত্র সমাজ, ব্যবসায়ী সহ এলাকা বাসী বিক্ষোভ  মিছিল ও মানব বন্ধন করেন।  বিক্ষোভে -অংশ নেয় শতশত লোক। সেই সাথে ধর্ষক রমজান ও সাইফুলের গ্রেফতার করে দ্রুত ফাঁসির দাবি করেন। ভালুকার মাটিতে ধর্ষকের কোন ঠাই নাই, ধর্ষকের প্রকাশ্যে ফাঁসি চাই শ্লোগানে উত্তাল হয়ে উঠে কলেজ মাঠ।

উল্লেখ্য যে ময়মনসিংহের ভালুকায় ভয় দেখিয়ে ৮ম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে (১৪) পালাক্রমে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে। রোববার (৩০ জুন) সকালে  অভিযোগে ওই ছাত্রী -বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ভালুকা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ভালুকা উপজেলার কৈয়াদী সোনা উল্লাহ স্কুল এন্ড কলেজের ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী। গত ১৬ জুন সকালে ছাত্রী বাড়ি থেকে জঙ্গলের পাশ দিয়ে স্থানীয় কায়ানাড়া রাস্তা দিয়ে স্কুলে যাচ্ছিল। এ সময় একই গ্রামের মৃত জাবেদ আলীর ছেলে সাইফুল ইসলাম ও ইয়ার মাহমুদের ছেলে রমজান আলী পেছন থেকে তাকে ঝাপটে ধরে জোর করে জঙ্গলের ভেতরে নিয়ে যায়। এ সময় তারা কিশোরীর গলায় ছুরি ধরে ও এসিড নিক্ষেপের ভয় দেখিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে এবং ঘটনাটি কাউকে না জানানোর ভয় দেখিয়ে ছেড়ে দেন। ভয়ে ওই কিশোরী ঘটনাটি বাড়ির কাউকে জানায়নি।

এদিকে গত ২৪ জুন ওই ছাত্রী পরীক্ষা দিতে একই রাস্তা দিয়ে স্কুলে যাওয়ার পথে ওই স্থানে সাইফুল ও রমজান আবারো ধর্ষণের চেষ্টা করলে সে দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে মেয়েটি বাড়িতে গিয়ে তার বাবা-মাকে বিষয়টি জানায়। পরে তার বাবা এ বিষয়ে জেলা পুলিশ সুপার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

ভালুকা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন জানান, পুলিশ সুপারের বার্তার প্রেক্ষিতে মামলা দায়েরের পর কিশোরীকে পরীক্ষার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। একইসঙ্গে আসামীদের গ্রেফতার করতেও পুলিশের চেষ্টা চলছে।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ব্রেকিংঃ