| |

আমার স্মৃতি আমার কান্না

প্রকাশঃ January 03, 2021 | 9:56 pm

এডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল:

আমার কোলে পিঠে বড় হওয়া আমার ভাগ্নে আরিফ এই সময়ের মেজর (অবঃ) খন্দকার মোহাম্মদ আরিফ। আমাদের পরিবারের সকলকে দুঃখ বেদনার সাগরে ভাসিয়ে আমাদের কে ছেড়ে হঠাৎ করেই না ফেরার দেশে চলে গেছে বিগত ৩১ শে ডিসেম্বর ২০২০।

প্রথমেই জ্বর তারপর সি এম এইচ পরিস্থিতির অবনতি আই সি ইউ তারপর লাইফ সাপোর্ট এরপর বিদায় ঘন্টা। থেমে গেলো আমার আইন পেশা অনেক টা বধির হয়ে গেলাম। আদালত থেকে বের হচ্ছিলাম তখন আমার মোবাইল টা আমাকে সংবাদ দিলো আমার ভাগ্নে মেজর (অবঃ) আরিফ আর নেই। আমি দাঁড়িয়ে গেলাম বুক ভরা কান্না আমাকে পেয়ে বসলো। সংবাদ টা মানতে পারছিলাম না। দশ বারো জন আইনজীবী এবং দলীয় নেতাকর্মীরা আমাকে চেম্বারে নিয়ে গেলো। আমার কান্নায় চারিদিক ভারি হয়ে গেলো। অধ্যাপিকা দিলরুবা শারমিন আমার স্ত্রী আমাকে মোবাইলে বললো তাড়াতাড়ি বাসায় আসো। সেও তখন কাঁদাছিলো। দ্রুত ঢাকার দিকে রওনা হলাম। জানাযা পাবো কিনা শেষ বার দেখতে পারবো কিনা চলতি পথে বারবার মন কে ধাক্কা দিচ্ছিলো। আল্লাহর রহমতে জানাযা পেলাম আমার কলিজার টুকরা আরিফ কে দেখলাম শেষ বারের মতো সুন্দর অবয়ব নিয়ে ঘুমিয়ে আছে। আমার খুব কষ্ট হচ্ছিলো। দাফন শেষে ময়মনসিংহে ফিরছিলাম ছোটোকাল থেকে বড় হওয়া পর্যন্ত স্মৃতি গুলো ভেসে উঠছিলো। আমাকে ভিষণ পছন্দ করতো। দেখা হলে বুকের সাথে বুক টা মিলিয়ে ধরে রাখতো অনেকক্ষণ। ভিষণ মা ভক্ত ছিলো ছেলেটা। তারপর তার ছোটোমামা। খুব মেধাবী ছিলো। ঢাকা বনানী সেনাদের কবরস্থানে তাকে কবর দেওয়া হয়েছে।

এখন আমি ভাবি ঢাকা থেকে ময়মনসিংহ কতোবার যাবো আর আসবো আমার হৃদয়ের পাজর কে যেখানে শুয়ে দিয়েছি সে জায়গা টার পাশ দিয়ে চলে যাবো। সময়ের আবর্তে কখনও ভুলবো না তাকে। মনে থাকবে জীবন মৃত্যু পর্যন্ত । মৃত্যুর পূর্বে আমাদের বউমা সুবর্ণা কে নাকি বলেছিলো সুবর্ণা আমাকে বাঁচাও আমি মরে যাচ্ছি। এই কথা টা আমাকে বারবার আঘাত করছে। আমি আমার এই ভাগ্নে কে সহজে ভুলবো না ভুলতে পারবো না। আমার তিনটা নাতনী রোদেলা, মেঘলা, নুসাইবা তাদের দুঃখ বেদনা অনুভব করার মতো ক্ষমতা আমার নেই। কারণ আমিই ত আমাকে সামলাতে পারছি না।

হে আল্লাহ তুমি আমাকে শক্তি দাও। তুৃমি আমার তিন নাতনী সহ আমাদের বউমা সুবর্ণা কে শক্তি দাও। আমরা সবাই যেন সব কিছু সামলে নিতে পারি। আর আমার পরহেজগার ভাগ্নে মেজর (অবঃ) খন্দকার আরিফ কে বেহেশতের সুন্দরতম সীমানায় স্থান করে দাও। আমীন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *